ঝিনাইদহে হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম গ্রহণ

স্টাফ রিপোর্টার॥

ধর্মীয় রীতিনীতি ও সংস্কৃতিতে অনুপ্রণিত হয়ে স্বেচ্ছায় হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন উজ্জ্বল কুমার দাস (৩৫)। বিজ্ঞ জেলা নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে তার নাম পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে মোঃ আবুবক্কর ।

আবুবক্কর ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কুমড়াবাড়িয়া ইউনিয়নের নেবুতলা গ্রামের সনাতন ধর্মাবলম্বী ধিরেন্দ্রনাথ দাসের ছোট ছেলে, তার মাতার নাম হাসী রানী।

জানাযায়, গত ২০ জানুয়ারি ২০২০ সালে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ছোট কামাড়কুন্ডু গ্রাম এক বিশাল ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সেই মাহফিলে আবুবক্কর ওয়াজ শুনতে যায়। এর আগেও সে বিভিন্ন মাহফিলে ওয়াজ শুনেছে সে। এর পর ঐ মাহফিলে হযরত মাওলানা আমির হামজার ওয়াজ শুনে তার হাত ধরেই ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন তিনি।

নব্যমুসলিম আবুবকর সিদ্দিক জানান, আমি জন্মগত ভাবে সনাতন ধর্মাবলম্বী এবং জন্মের পর থেকে এই ধর্ম পালন করে করেছি। সুতরাং আমি সাবালক হওয়ার পর ইসলাম ধর্মের রীতিনীতি, নামাজ, রোজা, হজ্জ, যাকাতসহ যাবতীয় বিধিবিধান আমার ভাল লাগে এবং দীর্ঘদিন যাবৎ আমি বিভিন্ন বক্তার ওয়াজ শুনে এসেছি সেই কারনে সেচ্ছায় ও স্বজ্ঞানে হিন্দু থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি। আমি পেশায় একজন (চুল কাটা) পরামানিক। তাই মুসলমানদের সহযোগিতা আমার অতি প্রয়োজন।

আঠারো মাইল বাজারের ব্যবসায়ী মতিয়ার ডাক্তার, দীনু, শুকুর আলীসহ একাধীক ব্যবসায়ী ও গ্রামের লোকজন জানান, আমরা আঠারো মাইল বাজারে সবাই মিলে একটা মসজিদ নির্মান করেছি। সেখানে আমরা নিয়োমিত নামাজ আদায় করি।

অবসর সময়ে দোকানে উচ্চস্বরে বিভিন্ন বক্তার কোরআনের তাপসির শুনি, উজ্জল সাদও সেখানে উপস্থিথ হয়ে সেই কোরআনের তাপসির শোনে। এর পর সে বিভিন্ন ওয়াজ মাহফিলে যায়, বিভিন্ন বক্তার ওয়াজ শোনে। এভাবে সে বেশকিছু দিন যাবার পর সে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার মতপ্রকাশ করে।

এরিমধ্যে সে ঝিনাইদহের কামারকুন্ডু গ্রামে ওয়াজ শুনতে যায় সেখান থেকে মাওলানা আমির হামজার হাত ধরে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে। তার এই ধর্ম পরিবর্তন করাতে এলায় একটি চাঞ্চল্য সৃষ্ঠি করেছে। তবে গ্রামবাসি তার সকল ধরনের সুযোগ সুবিধা দিচ্ছে।

প্রতিবেশী ধীরেন কুমার বিশ্বাস জানান, উজ্জাল দাশ আগে হিন্দু ধর্মের ছিলো। তখন সে হিন্দু ধর্ম পালন করেছে। সে ধর্ম পরিবর্তন করার সাথে সাথে তার মা বাবা ভাই বোনদের সাথে সকল সম্পার্ক ছিন্নকরে এখন সে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে। এখন দেখছি সে নিয়মিত নামাজ আদায় করে। মুসলমানদের সাথে ওঠা বসা করে। এব্যাপারে আমাদের কোন সমস্য নেই।

আবুবক্করের মা হাসী রানী জানান, উজ্জল সে নিজেই বাড়ির কাউকে কিছু না জানিয়েই নিজের ইচ্ছায় ধর্ম ত্যাগ করে বাড়ি থেকে চলে গিয়েছে।

আমি তার মা সে আমার কাছেও কিছু বলেনি। কাউকে কিছু না বলেই সে ধর্ম ত্যাগ করেছে, ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে। তবে সে যদি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে ভালো থাকে তাহলে আমার কোন সমস্য নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here