চশমা প্রার্থীর অসুস্থতায় হাসপাতালে ছুটে গেলেন তালা মার্কার প্রার্থী

আব্দুল্লাহ আল মামুন: একই উপজেলার প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী তার পরও ছুটে গেলেন হাসপাতালে তাকে দেখতে। এমন ঘটনাই ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মানুষের আশা জাগিয়েছে। প্রতিটি মানুষের কাছে পৌছে গেছে এই বার্তা, একই পদে দুই প্রাথী তার পরও চশমা মার্কার প্রার্থী পলাশ কুমারের অসুস্থতায় হাসপাতালে ছুটে গেলেন তালা মার্কার প্রার্থী নূরে আলম বিল্পব।

গতকাল বুধবার চশমা মার্কা প্রার্থী পলাশ কুমার যখন অসুস্থ হয়ে যখন চিকিৱসা অবস্থায় ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে আছেন। তখন যুবসমাজের প্রেরণা তালা মার্কা প্রার্থী নূরে আলম বিল্পব তার প্রতিপক্ষের কথা ভুলে গিয়ে পলাশকে দেখেতে ছুটে যান হাসপাতালে।

এবিষয়ে নূরে আলম বিল্পব বলেন, সেবাই মানুষের ধর্ম। আমি আমার কর্তব্য ও দায়ত্ব পালন করেছি মাত্র। পলাশ আমার ছোট ভাই, সে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আমিও একজন প্রাথী তাই বলে সে অসুস্থ হয়ে গেলে আমি খোজখবর নেব না! আমি সেরকম নেতা নয়। আমি চাই মানুষকে সেবা করতে জনগণের পাশে থাকতে ।  আমি মানুষের সবসময় পাশে থাকতে চাই।  আগামী উপজেলা নির্বাচনে জনগণ যদি আমাকে তালা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করে তাহলে গ্রামকে শহর, শিক্ষার বিকাশ, যুবসমাজের বেকার সমস্যা দূরিকরণ এবং ঝিনাইদকে মাদক মুক্ত করবো। আমি সবসময় মানুষের সেবক হয়ে মানুষের মাঝে থাকতে চাই।

উল্লেখ্য ঝিনাইদহ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দুই জন একজন নৌকা প্রতিক এ্যাডভোকেট রশিদ তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী সনন্ত্র প্রাথী দোয়াত কলম প্রর্তীকে জে এম রশিদ। উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সদরে তিনজন প্রার্থী। এর মধ্যে যুবলীগ নেতা নূরে আলম বিল্পব তালা মার্কা, পলাশ কুমার চশমা মার্কা ও আসাদুজ্জামান রাসেল টিউবয়েল মার্কায় প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here